আহলে সুন্নাহর প্রতি হৃদয়ের আহবান

 

লেখকঃ

শাইখ আবু মালিক আশ শামী হাফিজাহুল্লাহ (জামাল হোসাইন জাইনিয়াহ)             

আমিরঃ জাবহাতুন নুসরাহ (বর্তমান জাবহাতু ফাতহিশ শাম), কালামুন শাখা

 

আলহামদু লিল্লাহ, ওয়াস সালাতু ওয়াসসালামু আলা রাসূলিল্লাহ।

আম্মা বা’দ- আহলে সুন্নাহর অনেক ভাই বিশেষত আমাদের লেবাননের ভাইয়েরা দীর্ঘদিন যাবত কুখ্যাত রাফেজী সংগঠন হিজবুল্লাত এবং তাদের সহযোগী অন্যান্য  রাফেজী সংগঠনগুলোর ব্যাপারে আমাদের যুদ্ধনীতি জানার আগ্রহে আছেন। প্রথম কথা হল- সিরিয়া যুদ্ধে তাদের যুদ্ধাপরাধগুলো কারো কাছেই অস্পষ্ট নয়। সিরিয়ার আহলে সুন্নাহর সাথে তাদের পাশবিক আচরণ, নারী-শিশুদেরকে নির্বাসন, মসজিদ মাদ্রাসা সহ পবিত্র স্থানসমুহের উপর বোমা বর্ষণ, ব্যাপক আকারে হত্যা লুন্ঠন সহ এমন কোন অপরাধ নেই  যা তারা সিরিয়াবাসীর সাথে করেনি।এরপর তারা ‍শুধু এতটুকুতেই ক্ষান্ত থাকেনি, বরং লেবাননে বসবাসকারী আমাদের আহলে সুন্নাহর ভাইদের সাথে এসব আচরণ শুরু করে দিয়েছে । এইতো সম্প্রতি ঘটে যাওয়া তোফাইল জনপদের ঘটনা আমাদের কার অজানা নয় । তারা লেবাননে আহলে সুন্নাহর প্রতিটি অঞ্চলে নিরাপত্তার নামে ভয়াবহ অবরোধ জারী করে রেখেছে । অথচ তারা ভুলে গেছে যে, আহলে সুন্নাহ হল আগ্নেয়গিরীর মত। কেউ যদি তার স্বাভাবিক একটি মুখ বন্ধ করে দেয় তাহলে তা আরো দশটি মুখ ফেড়ে বের হবে। আর যুদ্ধ তো সর্বদা তার আপন গতিতেই চলবে । তাই আমরা বর্তমান পরিস্থিতিতো আমাদের আহলে সুন্নাহ ভাইদের উদ্দেশ্যে নিম্নোক্ত বার্তাগুলো পাঠাচ্ছি যে,

এক.

কালামুন এবং লেবাননের সকল স্থানে আমাদের আহলে ‍সুন্নাহ ভাইয়েরা! আল্লাহর শপথ আমাদের অন্তরগুলো কখেনো প্রশান্ত হবেনা আমাদের চক্ষুগুলো কখনো ঠান্ডা হবেনা যতক্ষন পর্যন্ত আমরা আপনাদের পক্ষ হয়ে এই পাপিষ্ঠদের থেকে যুদ্ধাপরাধের প্রতিশোধ না নিবো। আব্দুল্লাহ বিন সাবা আর আবু লুলু আলমাজুসীর জারজ সন্তানদেরকে আমরা অক্ষরে অক্ষরে টের পাইয়ে দিবো যে, আহলে সুন্নাহর উপর এক ঘা তুললে কত ঘা খেতে হয়।

হে আমাদের সুন্নি ভাইরা! আপনারা দেখুন- প্রতিদিন বিভিন্ন ময়দানে তাদের মৃতদেহ গুলো কিভাবে কুকুরের মত পরে থাকে। আল্লাহ তায়ালা বলেন- তোমরা তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করো আল্লাহ তায়ালা তোমাদের হাতে তাদেরকে শাস্তি দিবেন, তাদেরকে লাঞ্ছিত করবেন, তাদের উপর তোমাদেরকে বিজয়ী করবেন, মুমিনদের অন্তরকে প্রশান্ত করবেন তোমাদের অন্তরের ক্রোধকে প্রশমিত করবেন আল্লাহ তায়ালা যাকে চান তার তাওবা কবুল করেন আল্লাহ তায়ালা সর্বজ্ঞাত প্রজ্ঞাময়

আল্লাহ তায়ালা আরো বলেন- তাদেরকে যেখানে পাও সেখানেই হত্যা করো এবং তাদেরকে বের করে দাও যেমন তারা তোমাদেরকে বের করে দিয়েছে।

দুই.

রুমিয়া কারাগার এবং তাগুতের অন্যান্য কারাগারে আমাদের যেসব ভাই বন্দি তাদের উদ্দেশ্যে –

আল্লাহর শপথ আমাদের অন্তরগুলো আপনাদের সাথেই আছে। ইনশাআল্লাহ! বিপদ আর অল্প ক’দিন। সামান্য সময়ের ব্যাবধানে এই বিপদের অবসান হতে পারে। সুতরাং আপনারা আল্লাহ তায়ালার উপর সুধারণা পোষণ করুন। এবং আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হবেন না । কারণ একমাত্র কাফেররাই আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হতে পারে । আল্লাহ তায়ালা আমাদের সাথে দুই কল্যানের একটির ওয়াদা করেছেন। আল্লাহ তায়াল বলেন- আপনি তাদেরকে বলে দিন তোমরা আমাদের ব্যাপারে দুই কল্যাণের একটির অপেক্ষায় আছো। আর আমরা তোমাদের ব্যাপারে অপেক্ষা করছি যে, আল্লাহ তায়ালা তার পক্ষ থেকে অথবা আমাদের হাতে তোমাদেরকে শাস্তি দিবেন। সুতরাং তোমরা অপেক্ষায় থাক আমরাও তোমাদের সাথে অপেক্ষায় রইলাম।

তিন.

হিযবুল্লাহ নামি আল্লাহর দুশমন পাপিষ্ঠ রাফেজীদের প্রতি—

হে নাপাক নরাধম রাফেজীরা! তোরা ভাবিস না তোদের সাথে আমাদের এ যুদ্ধ কোন সীমান্ত বা পাহাড়ী  ঘাটির মাঝে সীমাব্ধ থাকবে। আলহামদু লিল্লাহ আমরা এতদিনে লেবাননে তোদের সকল অবরোধ উঠিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের সাথে এমন হাজারো ভাই রয়েছেন যারা শুধু অনুমতির অপেক্ষায় রয়েছেন লেবাননের অভ্যন্তরে তোদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করতে। হাঁ ঐ দেখ দিগন্ত থেকে তেড়ে আসছে যুদ্ধের লাভা। তোরা অপেক্ষা কর আহলে সুন্নাহর সুপ্ত ক্রোধের, যা ধেয়ে আসছে তোদের বক্ষপানে। আল্লাহ তায়ালা বলেন, হে মুমিনগণ! তোমরা তোমাদের নিকটবর্তী কাফেরদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ কর। তারা যেন তোমাদের মাঝে ক্রোধ দেখতে পায়। আর জেনে রাখ আল্লাহ তায়ালা মুত্তাকিদের সাথে রয়েছেন।

চার.

সর্বশেষ আহবান

হে আমাদের লেবাননের ভাইয়েরা তোমরা তোমাদের সিরিয় ভাইদের সাথে যোগ্য ভাতৃত্ব এবং উত্তম প্রতিবেশিত্বের হক আদায় করেছ। তোমরা সকল বাধা বিপত্তির মুখেও তোমাদের ভাইদের পাশে দাড়িয়েছ। সুতরাং তোমরা সামনে বাড়ো! রাফিজেদের বিরুদ্ধে সকলে এক হস্ত এবং এক বক্ষ হয়ে যাও! আজ দেখ রাফেজীরা তোমাদের কাটার জন্য হাতে ছুরি তুলে নিয়েছে তোমাদের অপেক্ষার সময় শেষ হয়ে এসেছে। এই জীবনের কোন স্বাদ নেই যখন চোখের সামনে আমাদের মা বোনদের ইজ্জত লুন্ঠন করা হয়। আমাদের দ্বীনের তাচ্ছিল্য করা হয়। হা আমাদের বর্তমান প্রজন্ম আত্মমর্যাদাশীল প্রজন্ম। তারা লাঞ্ছনা মেনে নিতে পারেনা। সামনের দিনগুলোই প্রমাণ করবে কে মর্যাদাশীল আর কে লাঞ্চনার জীবনে অভ্যস্ত।

হে আল্লাহ! আপনি আপনার দীনকে বিজয়ী করুন । আপনার আওলিয়াদের সাহায্য করুন। এবং আপনার বাহিনী দ্বারা আমাদেরকে সাহায্য করুন। নিশ্চই আপনি সকল বিষয়ে ক্ষমতাবান।

 

 

মাআস সালাম

শাইখ আবু মালিক আশ শামী হাফিজাহুল্লাহ (জামাল হোসাইন জাইনিয়াহ)

আমিরঃ জাবহাতুন নুসরাহ (বর্তমান জাবহাতু ফাতহিশ শাম)

কালামুন শাখা

শাম আলমোকাদ্দাসাহ

 

পিডিএফ

৭৮৮ কেবি

https://www.pdf-archive.com/2016/08/23/ahlas-sunnah/

http://document.li/yZbo

http://www.mediafire.com/download/ygmvs6r45bysxpv/ahlas+sunnah.pdf

http://up.top4top.net/downloadf-235y6s82-pdf.html

 

ওয়ার্ড

১.৫৪ এমবি

http://up.top4top.net/downloadf-2353e8u1-docx.html

http://www.mediafire.com/download/ea1ukzdtkadu4t8/ahlas+sunna.docx

প্রকাশনা ও পরিবেশনা


প্রকাশকাল
২৩ আগস্ট ২০১৬ ইংরেজি


আপনাদের নেক দুয়ায় আমাদের ভুলবেননা!

সকল ভাইদের প্রতি আহবান আমরা সবাই যেন শেয়ার করে ছড়িয়ে দেই । বারাকাল্লাহু ফিকুম। 


 



Created: 23/08/2016
Views: 344
Online: 0